এক ফালি রোদ্দুর গল্পের লিংক || তানজিল মীম || ধারাবাহিক গল্প

8225

এক ফালি রোদ্দুর পর্ব ১
লেখনীতে: তানজিল মীম

“ভরা বিয়ে বাড়ির মাঝখানে মাথা নিচু করে দাঁড়িয়ে আছি আমি’!!ভয়ে হাত-পা ঠান্ডা হয়ে গেছে প্রায়’!!আর আমার পাশে কাঁদায় ভূত হয়ে চোখ লাল করে আমার দিকে তাকিয়ে আছে বিলেতে থাকা আমার কাজিন “রিয়াদ” ভাইয়া’!!অবশ্য উনি যে আমার কাজিন তা এইমাত্রই জানতে পেরেছি আমি’!!আমি তো ওনাকে অন্যকিছু ভেবেছিলাম তাই তো এখন সবার কাছ থেকে ঝাড়ি খাওয়া লাগছে….

“কিছুক্ষন আগে…..
“আজকে আমার মেজো খালার মেয়ে শিউলি আপুর গায়ে হলুদ’!!খুব বড় করেই বিয়ে দেওয়া হচ্ছে তার’!!আর তার বিয়ে উপলক্ষে আমরা সবাই গ্রামের বাড়িতে এসেছি’!!ইচ্ছে ছিল আমাদের বেয়ানসাবদের কাঁদা দিয়ে ভূত করে দিবো’!!তাই আমি আর আমার কাজিনরা মিলে ছাঁদের কিনারায় এক বালতি কাঁদা পানি নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলাম’!!অবশ্য প্লানটা আমারই ছিলো’!!প্লান মতো সবাই বেশ আগ্রহে দাঁড়িয়ে ছিলাম’!!কিছুক্ষনের মাঝেই আমাদের গেটের সামনে একটা গাড়ি থামলো’!!আর সেখান থেকে নামলো দুটো ছেলে’!!আমি তো ভেবেই নিয়েছিলাম এরাই হয়তো শিউলি আপুর শশুর বাড়ির লোকজন’!!তাই তো যেই না বাড়ির ভিতর ওনারা ঢুকে পরলো তখনই সুযোগ বুঝে এক বালতি কাঁদা পানি ঢেলে দিলাম আমি একটা ছেলের গায়ের ওপর’!!ঘটনাচক্রে সবাই পুরো হা হয়ে গেছে আমাদের কান্ডে তাঁরা হয়তো বুঝতে পারে নি এমন কিছু একটা হবে’!!আমরা তো কাঁদা পানি ঢেলে দিয়েই ছাঁদ ঘেঁসে বসে পরলাম কিন্তু তারপরও সবাই বুঝেই গেল কাজটা আমরাই করেছি….

আরও গল্প পড়তে আমাদের গ্রুপে জয়েন করুন

”আর এই মুহুর্তে তারই জন্য সবার কাছে বকা খেতে হচ্ছে আমাদের’!!সবাই একের পর এক বকা দিয়ে চলেছে’!!আরে আমি কি করে জানতাম নাকি যে উনি আমাদের বেয়ান না কাজিন…
“বর্তমানে…..
—-“তোর কি কোনো কান্ড জ্ঞান নেই ছেলেটা বাড়িতে ঢোকার আগেই এমন বদমাশি করলি তুই…. (আম্মু)
—-“সরি আম্মু,আর আমি একা করেছি নাকি ওঁরাও তো ছিল আমার সাথে….
—-“সব জানি আমি কাজটা তুই একা না করলেও প্লানটা যে তোর একারই ছিল তা আমি ভালোই জানি…
“বলেই কান ধরে টান দিল আম্মু’!!আমি ব্যাথায় বলে উঠলামঃ
—-“আহ্!আম্মু লাগছে তো…
—-“লাগে লাগুক…
—-“বিশ্বাস করো আম্মু, আমি ইচ্ছে করে ওনার গায়ে কাঁদা পানি ঢালতে চাই নি,ভুল করে হয়ে গেছে….
—-“ভুল করে…
—-“সরি আম্মু, ভুল হয়ে গেছে….
—-“আমাকে সরি বলে কি হবে রিয়াদকে সরি বল ছেলেটা কতবছর পর আমেরিকা থেকে দেশে আসলো শিউলির বিয়ে উপলক্ষে আর তোরা কিনা এই ভাবে ছিঃ ছিঃ….

“এমন সময় আমাদের বড় খালা আই মিন রিয়াদ ভাইয়ার আম্মু এসে বললোঃ
—-“হয়েছে এখন ছাড় ওকে ও তো না বুঝে এমনটা করে ফেলেছে…
—-“কিন্তু আপু…
—-“আর কোনো কিন্তু নয় এমনিতেও সবার কাছ থেকে অনেক বকা খেয়েছে ওঁরা….
—-“শুধুমাএ তোমার জন্য ছেঁড়ে দিলাম কিন্তু ওঁকে বলো ও যেন রিয়াদকে সবার সামনে সরি বলে…
—-“হুম বলবে নে,কি বলবি তো “তানজু”…..(আমার দিকে তাকিয়ে)
“আমিও খালামনির কথা শুনে বলে উঠলামঃ
—-“হুম বলবো এখন তো আমার কানটা ছাড়ো আম্মু খুব লাগছে কিন্তু….
“আম্মুও ছেড়ে দিলো’!!আম্মুর কাছ থেকে ছাড়া পেতেই কান ঢলতে লাগলাম আমি’!!প্রচন্ড ব্যাথা পেয়েছি’!!আমাকে কান ঢলতে দেখতে আম্মু চেঁচিয়ে বলে উঠলঃ

—-“কি হলো দাঁড়িয়ে আছিস কেন যা সরি বল…
—-“হুম যাচ্ছি তো…
—-“আর শোন কান ধরে সরি বলবি…..
—-“কি….
—-“কোনো কি শুনতে চাই নি তোকে যেটা বলা হয়েছে তাড়াতাড়ি কর সেটা….
—-“এমন আম্মু থাকলে শএুর কি প্রয়োজন আমার বিড়বিড় করে….
—-“কি বিড়বিড় করছিস বলতো তুই…
—-“না কিছু না তো…
“এই বলে শুকনো ঢোক গিলে রিয়াদ ভাইয়ার সামনে দাঁড়িয়ে মিনমিন কন্ঠে বলে উঠলাম আমিঃ
—-“সরি ভাইয়া…
“আরো জোরে বল কিছুই তো শুনতে পাই নি’!!আর কানে হাত দিচ্ছিস না কেন?
—-“আরে বাবা দিচ্ছি তো…
“এই বলে সবার সামনে দু-কানে হাত দিয়ে বলে উঠল আমিঃ
—-“সরি রিয়াদ ভাইয়া….

“আমার কাজ দেখে মিনমিন কন্ঠে হাসলো শিফা,রুহি আর তরী,সাথে বাড়ির আরো অনেকেই….
“ওদেরকে হাসতে দেখে আম্মু বলে উঠলঃ
—-“তোরা হাসছিস কেন?তোরাও যা রিয়াদকে সরি বল…
“আম্মুর কথা শুনে শিফা,রুহি আর তরী তিনজনই মাথা নাড়িয়ে হ্যাঁ সমর্থন দিলো’!!এমন সময় নানাভাই বললো রিয়াদকেঃ
—-“রিয়াদ তুমি উপরে গিয়ে আগে চেঞ্জ করে আসো…
“ওঁরা সরি বলার আগেই রিয়াদ ভাইয়া হন হন করে উপরে চলে গেল,আর যাওয়ার আগে আমার দিকে অগ্নি চোখ নিক্ষেপ করে গেছে….
“হয়তো রেগে গেছে খুব!’অবশ্য রাগারি কথা বাড়িতে ঢুকতে না ঢুকতেই ছিঃ তানজু কি অবস্থা করছিস তুই….
“ভাবতেও তোর প্রতি আমার প্রাউড ফিল হচ্ছে…”
“আমার ভাবনার মাঝখানে আবারো আম্মু বলে উঠলঃ
—-“তুই কি ভাবছিস যা উপরে যা কিছুক্ষন পর শিউলির গায়ে হলুদ যদি কোনো উল্টো পাল্টা কাজ করেছিস তাহলে তোর একদিন কি আমার একদিন…

“বলেই হনহন করে চলে গেল আম্মু’!!তারপর একে একে সবাই চলে গেল’!!আমি,রুহি,শিফা আর তরী মাথা নিচু করে চুপ করে দাঁড়িয়ে আছি’!!এমন সময় নানাভাই এসে বললোঃ
—-“এবারের দুষ্টুমিটা কিন্তু খুব ভালো ছিল “ময়নাপাখিরা”…,তবে ভুল জায়গায় করে ফেলেছো কি অবস্থা করেছো রিয়াদ নানাভাইর,আমি তো চিনতেই পারি নি প্রথমে,তবে ব্যাপারটা কিন্তু বেশ লেগেছে আমার কাছে……
“নানাভাইর কথা শুনে আমরা তিনজন মিলে একে অপরের দিকে তাকিয়ে উচ্চ স্বরে হেঁসে দিলাম’!!সাথে নানাভাইও হাসলো….
“হর্ঠাৎই রান্না ঘর থেকে আম্মু চেঁচিয়ে বলে উঠলঃ
—-“ওই এতো জোরে হাসে কে….
“সাথে সাথে আমি ঠোঁটে হাত বললামঃ
—-“হুস….
“তারপর তিনজন একসাথে হেঁসে উপরে উঠে পরলাম….

“ওয়াশরুম থেকে গোসল সেরে টাওয়াল পড়ে নিজের ব্যাগ থেকে জামাকাপড় বের করছে রিয়াদ’!!রাগে গা জ্বলে যাচ্ছে তার এতবছর পর দেশে ফিরে বাসার ভিতর ঢুকতে না ঢুকতেই ভাবতেই রাগ হচ্ছে রিয়াদের’!!মেয়েটাকে হাতের কাছে পেলে কি যে করবে রিয়াদ তা সে নিজেও জানে না’!!এমন সময় হাতে একটা আপেল নিয়ে আহান রুমে ঢুকলো’!!আহান হলো রিয়াদের ফ্রেন্ড ওরা দুজনই আমেরিকা থেকে এসেছে’!!আহান হাসতে হাসতে বলে উঠলঃ

—-“উড়ে দোস্ত ফ্রেশ হয়ে গেছিস,তবে যাই বল তোকে কিন্তু কাঁদায় ভূত হয়ে দারুণ লাগছিল….
—-“মজা নিচ্ছিস আমার সাথে বলেই একটা বালিশ মারলো রিয়াদ আহানের গায়ের ওপর…
“আহান হাত দিয়ে ধরে ফেললো বালিশটাকে তারপর বললোঃ
—-“আরে আমার উপর রাগ ঝারছিস কেন?রাগ ঝারতে হলে ওই মেয়েটার ওপর ঝার কি যেন নাম ছিল হু মনে পরছে…
—-“তানজু…
—-“ওকে তো দেখে নিবো আমি…
—-“কি করবি তুই…
—-“কিছু তো একটা করতেই হবে,রিয়াদের গায়ের ওপর কাঁদা পানি ফেলেছে এমনি এমনি ছেড়ে দিবো নাকি….
“শয়তানি মার্কা একটা হাসি দিলো রিয়াদ’!!

– “বুক চিন চিন করছে হায় মন তোমায় কাছে চায়….
– “বুক চিন চিন করছে হায় মন তোমায় কাছে চায়..(২)
– ‘আমরা দুজন দুজনারই প্রেমের দুনিয়ায়….
– “তুমি ছুয়ে দিলে হায় আমার কি যে হয়েছে যায়..
তুমি ছুয়ে দিলে হায় আমার কি যে হয়ে যায়….
……..
“ফুল স্পিডে গানটা ছেড়ে একটা ইয়োলো রঙের লেহেঙ্গা সাথে কালো চশমা পড়ে উড়াধুরা নাচছি আমি,আর আমার সাথে রুহি,শিফা তরী সহ আরো অনেকেই,পুরো বাড়ি কাপিয়ে নাচছি আমরা…..
“এমন সময় সেখানে উপস্থিত হলো আমার ভাই দিহান,সাথে তার বন্ধুরা সবাই মিলে পুরো স্টেজ কাঁপিয়ে দিয়েছি….
“নাচানাচির মাঝেই হাজির রিয়াদ আর আহান’!!একে একে সবার সাথে কথা বলছে সে…..

“হুট করেই নাচানাচি থেকে বেরিয়ে আসলাম আমি’!!গায়ে হলুদের মাঝে একটু দুষ্টুমি না করলে চলে নাকি এই ভেবে চললাম আমি শিউলি আপুর দিকে’!!একে একে সবাই আপুকে হলুদ মাখিয়ে দিয়েছে আমিও গিয়ে একটু লাগিয়ে দিয়ে এক বাটি হলুদ নিয়ে আসলাম তারপর একে একে সবার গালে হলুদ দিয়ে ভূত বানিয়ে দিয়ে দৌড়াতে লাগলাম আমি….
“আর আমার কাজে রুহি,শিফা, তরী ওঁরা অবাক হয়ে আমার পিছন পিছন দৌড়াতে লাগলো’!!কিন্তু তানজুকে ধরা এতো সহজ নাকি….
“এই ভেবে আমিও দিলাম দৌড়….
—-“তোরা আমারে ধরবি এতো সহজ নাকি….
—-“আমাদের ভূত বানিয়েছিস তোকে ছেড়ে দিবো নাকি….
—-“আমিও দেখবো তোরা কি করে ধরিস আমায়….

“তানজুর থেকে কিছুটা দূরেই দাঁড়িয়ে ছিল রিয়াদ আর আহান’!!হর্ঠাৎই আহান বললোঃ
—-“তুই কি করবি বল তো…
“রিয়াদ চুপ!’হর্ঠাৎই সেখান একটা লোক কিছু ডিম নিয়ে যাচ্ছিল ওদের পাশ দিয়ে রিয়াদ একটা শয়তানি মার্কা একটা হাসি দিয়ে একটা ল্যাং মারলো লোকটাকে সাথে সাথে লোকটা হুমড়ি খেয়ে পরলো নিচে আর লোকটার হাতে থাকা ডিমগুলো গিয়ে পরলো তানজুর গায়ের উপর….
“আচমকা কোনো কিছু গায়ের উপর এসে পরাতে আমি পুরো কেঁপে উঠলাম’!!সাথে কি পরেছে ভাবতেই ইয়াক থুঁ…..
—-“হায় রে আমার সাঁধের লেহেঙ্গা টা গেল রে….
“এদিকে রিয়াদ মুখ চেপে হাসছে…..

এক ফালি রোদ্দুর পর্ব ২